নিন্দুকেরা বনাম বাংলা সিনেমা


2017-01-27 15:54:45 27 0

বাংলাদেশের সিনেমার কথা শুনলে এখন মানুষ নাক শিটকাতে ভুল করে না। আর এর ফাঁকে কোলকাতার সিনেমা এদেশের বাজার দখল করে ফেলেছে। এদেশে কোলকাতার সিনেমা এমন বাজার তৈরী করে ফেলেছে যে, কোলকাতার ‘লাল্টু-বল্টুর’ সিনেমাও এদেশের মানুষ ‘হা’ করে দেখে। (মুখে মাছি ঢুকলেও টের পায় না)।

তবে ঢালিউডের সিনেমা পিছিয়ে পড়ার পিছনে পরিচালকদেরই দায়ভার বেশী। কিছু কিছু সাকিব খান মুখী পরিচালক এবং মুনাফালোভী প্রেযোজকরা নিজেদের পকেট ভরতে বাংলাদেশের সিনেমার লাল বাতী জ্বালিয়েছেন।

সাকিবমুখী পরিচালক এবং প্রযোজকদের কারণে হারিয়ে গেছে জনপ্রিয় নায়ক রিয়াজ, আমিন খান সহ বেশ কয়েকজন নায়ক। যা খুবই হতাশাজনক। হারিয়ে যাওয়া নায়কদের ফিরিয়ে আনার চেষ্টাও কেউ করেন না।

সবাই স্রোতের দিকে গা ভাসাচ্ছেন। সাকিব খানের সিনেমা মানে হিট। কিছুদিন পর যখন বাপ্পী অথবা সায়মন সাদিক সাকিব খানের জায়গা দখল করে নিবেন তখন এই কতিপয় সুবিধাবাদী পরিচালক এবং প্রযোজকরা সাকিব খানের দিকে ফিরেও তাকাবেননা। সুযোগের সদ্ব্যাবহার করতে বাপ্পী অথবা সায়মন সাদিক এর নামেই সিনেমা নির্মান করবে তারা। যেমনটি হয়েছিলো প্রয়াত মান্না এবং সাকিব খানের ক্ষেত্রে।


The Public Posts নিন্দুকেরা বনাম বাংলা সিনেমা


বাংলাদেশের সিনেমা যেখানে টলিউডের কাছে মার খেয়ে খাদের কিনারায় বসে হাপাচ্ছিলো তখন দেবদূতের মতো যেনো হাল ধরতে চাইলেন জাজ মাল্টিমিডিয়া এবং এম এ জলিল অনন্ত।

কিছুদিন আগের সেই নাক শিটকানো মানুষ এখন হলে যাচ্ছে। জাজের সিনেমা দেখছে-অনন্ত’র সিনেমা দেখছে। জাজের সিনেমা নিয়ে দর্শকদের তেমন কোন আপত্তি নেই। তবে কতিপয় কিছু নিন্দুকেরা অনন্ত’র পিছনে আদা জল খেয়ে লেগেছে।

তাদের মতে অনন্ত অভিনয় জানেননা। এটা ঠিক অনন্ত অভিনয়ে কাঁচা। তবে উনি চেষ্টার ত্রুটি করেন না। আমি উনার চেষ্টাকে প্রশংসা করি। অনন্ত চান বাংলাদেশের সিনেমা আন্তজার্তিক মানে পৌছাক। আর এ কারণে তিনি লোকসানের ভয় না করে একের পর এক ব্যয়বহুল সিনেমা নির্মাণ করছেন। যা আগে কেউ কখনো করেননি বা করতে সাহস পাননি।

পরিচালক এ কিউ খোকন অনন্ত’র বিষয়ে এক সাক্ষাতকারে বলেছিলেন-“অনন্ত যা করছে এটা এখন কেউ বুঝবে না, কয়েক বছর গেলে মানুষ বুঝতে পারবে বাংলাদেশের সিনেমার জন্য অনন্ত কি করেছে।” আমিও খোকন ভাইয়ের সঙ্গে একমত।

অনন্ত তো আমাদের কোন ক্ষতি করছে না। বরং বাংলা (ঢালিউড) সিনেমাকে বিশ্ববাজারে পৌছে দেয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করছে। আসুননা আমরা সকলে অনন্তকে সাহায্য করি।

আর যারা অনন্তকে অপছন্দ করেন তারা দয়াকরে অনন্ত’র পথ চলাকে বাধাগ্রস্থ করবেন না। আপনাদের ভালো না লাগলে অনন্ত’র সিনেমা দেইখেন না। আমি জানি, এক সময় আপনারা মানে নিন্দুকেরা নিজেদের ভুল বুঝতে পারবেন। আর তখন হয়তো বাংলদেশের সিনেমা জাজ মাল্টিমিডিয়া এবং অনন্ত’র হাত ধরে অনেক দূরে যাবে। তাদের দেখাদেখি অনেকে এগিয়ে আসবে বাংলা সিনেমার উন্নয়নে।

প্রসঙ্গ :
বাংলা সিনেমা ঢালিউড অনন্ত জলিল

ফেসবুক মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Name*

Web

Email*